ঢাকা, ১৮ জুলাই, ২০১৯ || ৩ শ্রাবণ ১৪২৬
bbp24 :: বরেন্দ্র প্রতিদিন
১৬

পুরো দলের দায়ভারও আমাকেই নিতে হবে

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০১৯  


ভিআইপি দিয়ে বের হওয়া মাত্রই নিজের ল্যান্ড ক্রুজার প্রাডোর ভেতরে হারিয়ে গেলেন তামিম ইকবাল। অগত্যা টিভি চ্যানেলের ক্যামেরাগুলো হুমড়ি খেয়ে পড়ল এই ওপেনারের গাড়ির ওপরই। হতাশার বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফেরার পর তামিম দ্রুতই বিমানবন্দরও ছাড়লেন। তবে বাসার পথ ধরার আগে বিশ্বকাপে অষ্টম হয়ে ফেরা দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এলেন অপেক্ষায় থাকা সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতে। এই বিশ্বকাপ যাঁর বিপুল সমালোচক গোষ্ঠীও দাঁড় করিয়ে ফেলেছে। পুরো আসরে বল হাতে বিবর্ণ মাশরাফির গায়ে এর উত্তাপও না লেগে পারে না। সে কারণেই কি না কথা বলতে বলতে কখনো কখনো তাঁর চোখ টলমল করে উঠতেও দেখা গেল। আবেগের বিস্ফোরণ ঘটল না, শুধু এই যা। তবে দলের ব্যর্থতার দায়ভার নেওয়ায় কোনো আপত্তি ছিল না বিশ্বকাপে নিজেও ব্যর্থ পেসারের। তাঁকে ঘিরে সমালোচনার লাভাস্রোত বয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়েই ব্যর্থতার দায় নিলেন মাশরাফি। কেউ পারফরম না করলে সমালোচনা হওয়াকেও স্বাভাবিক বলেই ধরতে চাইলেন নিজের চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলে ফেরা এই সংসদ সদস্য। মানুষের সমালোচনায় কতটা ব্যথিত হচ্ছেন, তা জানতে চাওয়াতেই নিজেকে সামলে নিয়ে বললেন, ‘না, অবশ্যই না। প্রথমত অধিনায়ক হিসেবে দলকে যখন সেই জায়গায় (বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল) নিয়ে যেতে না পারব, তখন সমালোচনা আমাকে নিতেই হবে। এবং পুরো দলের দায়ভারও আমাকেই নিতে হবে।’ নিঃসংকোচে তা নিচ্ছেনও মাশরাফি, ‘আমার জায়গায় অন্য কেউ থাকলে তাকেও দায়ভার নিতে হতো। আমি অবশ্যই সেই দায়ভার নিচ্ছি।’ সেই সঙ্গে কিছু জিনিস নিজেদের পক্ষে না যাওয়াতেই ব্যর্থ হিসেবে দেশে ফেরার আফসোসও ঝরেছে তাঁর কণ্ঠে, ‘সমালোচনা সারা বিশ্বেই হয়। বিশ্বকাপে আরো বেশি হবে, এটিই স্বাভাবিক। বলতে চাই, কিছু জিনিস পক্ষে গেলে আমাদের দল আজ অন্য জায়গায় থাকতে পারত।’ নিজেদের প্রত্যাশিত জায়গায় যেতে না পারার দুঃখ নিয়ে কাল বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে এমিরেটসের ফ্লাইটে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। দলের সবাই অবশ্য ফেরেননি। ইংল্যান্ডেই রয়ে গেছেন চারজন। বিশ্বকাপে অবিশ্বাস্য পারফরম করা সাকিব আল হাসান পরিবার নিয়ে আরো কিছুদিন ঘুরে বেড়াবেন ইউরোপে। তাঁর মতো ফেরেননি লিটন কুমার দাস, সাব্বির রহমান এবং মেহেদী হাসান মিরাজও। বাকি খেলোয়াড়দের সবাই ফিরেছেন। ২০ জুলাই শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে হচ্ছে বলে কাল দলের সঙ্গে ফিরেছেন হেড কোচ স্টিভ রোডসও।